Awesome Image

বিয়ের আগে ছেলে এবং মেয়েদের যে রোগগুলোর পরীক্ষা করতেই হবে এবং করাটা খুবই জরুরী

September 25, 2019

বিয়ের আগে ছেলে এবং মেয়েদের যে রোগগুলোর পরীক্ষা করতেই হবে এবং করাটা খুবই জরুরী।

বিয়ের আগে বর-কনের স্বাস্থ্য পরীক্ষাটা খুব জরুরি। কারণ আপনার রোগের সঙ্গে ওতোপ্রোতভাবে জড়িয়ে যাবে স্বামী কিংবা স্ত্রী। ভবিষ্যৎ প্রজন্ম হুমকির মুখে পড়ে যেতে পারে।http://kolikataherbaldoctor.com/
তাই প্রত্যেক বর-কনের বিয়ের আগে কয়েকটি পরীক্ষা অবশ্যই করিয়ে নেওয়া উচিৎ। যদি কারো বড় ধরনের কোনো রোগ থাকে তাহলে আগে থেকে জেনে সতর্ক হওয়ার সুযোগ পাবে। যেটা হয়তো ভবিষ্যতে কোন সমস্যা করবে না।
রক্ত পরীক্ষাসহ কিছু পরীক্ষা করা অতিব প্রয়োজন। যেমন থ্যালাসেমিয়া, হেপাটাইটিস, অ্যানিমিয়া বা থাইরয়েডসহ কিছু রোগ আছে যেগুলোর পরীক্ষা করা জরুরি।
বিয়ের আগে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করাও খুবই প্রয়োজন। রক্তের গ্রুপের ভিন্নতার কারণে পারিবারিক জীবনে কিছু জটিলতা তৈরি হতে পারে। নেগেটিভ রক্তবহনকারী কোনো নারীর সঙ্গে পজেটিভ কোনো পুরুষের বিয়ে হলে তাদের সন্তান জন্মদানের সময় কিছু জটিলতা তৈরি হতে পারে।
এমনকি গর্ভপাত বা শিশুর মৃত্যুও ঘটতে পারে। তাই পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বর-কনে বিয়ে করলে সুখী ও সুন্দর জীবন গঠন করা সম্ভব হবে। বিষেশজ্ঞদের মতে জেনে নেওয়া যাক কোন রোগগুলোর পরীক্ষা জরুরি:
থ্যালাসেমিয়া
যদি কোনো ছেলে এই রোগের বাহক হয় তাহলে দেখতে হবে তার স্ত্রী যেন এর বাহক না হয়। দুজনই এর বাহক হলে অনাগত শিশু এ রোগে আক্রান্ত হবে। এটি এমন একটি রোগ যাতে রক্তের হিমোগ্লাবিনের পরিমান কমে যায়।http://kolikataherbaldoctor.com/
ফলে রোগীকে প্রতি তিন থেকে আট সপ্তাহ পর পর রক্ত নিতে হতে পারে। আবার নিয়মিত রক্ত নেওয়ার কারণে বাড়তে পারে আয়রন যার ফলে হার্ট, লিভার ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এ জন্য স্বামী স্ত্রী দুজনকেই বিয়ের আগে পরীক্ষা করে নেওয়া উচিৎ।
যদি বিয়ের আগে জানা না যায় যে, বর-কনে দুজনই থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত তাহলে এসব সমস্যায় পড়তে হবেই বলে মত দিয়েছেন চিকিৎসকরা। এ ক্ষেত্রে ডাক্তাররা বাচ্চা না নেওয়ার জন্যই পরামর্শ দিয়ে থাকেন।
গাইনোকলজিক্যাল পরীক্ষা
এই পরীক্ষার মাধ্যমে কনের জেনে নেওয়া উচিৎ তার ইউরেটাস, ওভারিতে কোনো সমস্যা আছে কি না। তাহলে পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া উচিত। এর সঙ্গে ব্রেস্ট পরীক্ষাও করে নিতে হবে।
সেই সঙ্গে পুরুষেরও জেনে নিতে হবে তার বীর্যপাতজনিত বা পুরুষাঙ্গে কোনো সমস্যা আছে কি না। যদি কোনো সমস্যা থেকে থাকে তাহলে পরীক্ষার মাধ্যমে বিয়ের আগেই চিকিৎসা করাতে পরামর্শ দিয়েছে চিকিৎসকরা।
হেপাটাইটিস


বিয়ের আগেই বর-কনে পরীক্ষার মাধ্যমে জেনে নিবে তাদের লিভার কেন্দ্রীক কোনো সমস্যা আছে কি না। হেপাটাইটিস-এ, হেপাটাইটিস-বি, হেপাটাইটিস-সি, ঠিক আছে কিনা এ বিষয়টি বিয়ের আগেই জেনে নিতে হবে।
কারণ হেপাটাইটিস সেরে গেলেও কোনো কনে যদি বি বা সি-এ আক্রান্ত হয় তাহলে তার থেকে সংক্রমিত হয়ে স্বামী ও সন্তানের শরীরে যেতে পারে। এ জন্য বিয়ের আগেই হেপাটাইটিস এ ও বি ভ্যাকসিন নিয়ে নেওয়া উচিৎ।
থাইরয়েড:
থাইরয়েড বা অ্যানিমিয়া থাকলে পরবর্তী সময়ে সন্তান জন্ম দানের সময় সেটা ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। তাই আগেই এ পরীক্ষা করে নেওয়া ভালো। এ ছাড়া অ্যানিমিয়া আক্রান্ত পাত্রীরও বিয়ের পর সন্তান নিতে গেলে অনেক সময়ই সমস্যায় পড়তে হয়।
কিডনি
ইউরিয়া পরীক্ষা করে দেখে নিতে হবে কিডনিতে কোনো সমস্যা আছে কি না। ইউরিয়া বেশি থাকলে পরবর্তীতে বাচ্চার সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই আগেই এর চিকিৎসা করে নিতে হবে।
এছাড়া আরো কিছু রোগ আছে যেগুলো পরীক্ষা-নীরিক্ষা করা অতীব জরুরি। তার মধ্যে এইডস, মানসিক স্বাস্থ্য, সেক্সুয়াল হেলথ সমস্যা এবং ডয়াবেটিস। এই পরীক্ষাগুলো করার মাধ্যমে কোনো সমস্যা ধরা পড়লে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শে নিজেকে তৈরি করে নেবে। http://kolikataherbaldoctor.com/

বিয়ের আগে রক্ত পরীক্ষা যে কারণে 
বিয়ের আগে রক্ত পরীক্ষা করিয়েছেন, এ রকম লোকের সংখ্যা হাতেগোনা কয়েকজন। পারিবারিক ও সামাজিক অবস্থান মেলানোর পাশাপাশি রক্ত পরীক্ষাও হয়ে উঠেছে বিয়ের অনিবার্য অংশ। কেননা, এই রক্ত পরীক্ষার প্রধান উদ্দেশ্যই হলো ভবিষ্যতে সন্তান সুস্থ হবে কি-না- তা দেখা। তাই হবু মা ও বাবার নির্দিষ্ট কিছু রক্ত পরীক্ষা করানো প্রয়োজন।
>> দু'জনের ব্লাড গ্রুপ এ, বি, ও পজিটিভ এবং ও নেগেটিভ না হওয়াই বাঞ্ছনীয়। তাই আগে থেকেই রক্ত পরীক্ষা করিয়ে দেখা উচিত কার রক্তের গ্রুপ কী। http://kolikataherbaldoctor.com/
>> এ ছাড়া ভবিষ্যতে যদি কোনো অসুখে বা দুর্ঘটনায় হঠাৎ রক্ত দেওয়ার প্রয়োজন হয়, তাহলে ব্লাড গ্রুপ জানা থাকলে বাড়ির লোকজনকে খুব একটা সমস্যায় পড়তে হবে না।
>> টিসি. ডিসি, ইএসআর, কোলেস্টেরল, আরএইচ ফ্যাক্টর, এইচআইভি, আয়রন লেভেল ইত্যাদি কিছু রুটিন পরীক্ষা ছেলে এবং মেয়ে উভয়েরই করানো উচিত। তাহলে প্রথম থেকেই একটা মেডিকেল হিস্ট্রি থাকবে।
>> এ ছাড়াও থাইরয়েড, সুগার, থ্যালাসেমিয়া, হেপাটাইটিস বা টিউবারকিউলোসিসের মতো সমস্যা রয়েছে কি-না তা জানার জন্য বিয়ের আগে রক্ত পরীক্ষা আবশ্যক। যদি কেউ থ্যালাসেমিয়ার ক্যারিয়ার বা মেজর হন, তাহলে সে কীরকম জীবনসঙ্গী খুঁজবে এবং ভবিষ্যতে সন্তান পরিকল্পনা করতে পারবে কি-না বা সন্তান জন্মালেও সে কতটা সুস্থ হবে, সে সম্পর্কে আগে থেকে অভিজ্ঞ চিকিৎসকের গাইডলাইন থাকলে ভালো হয়।
>> সর্বোপরি অনেকেই হয়তো বংশানুক্রমিক (হেমোফিলিয়া, থেলাসেমিয়া, জেনেটিক ব্যাধি) কোনো রোগে আক্রান্ত। কিন্তু কোনো লক্ষণ না থাকায়, তা জানতে পারেননি। বিয়ের আগে এসব কিছুই জেনে নেওয়া প্রয়োজন। উভয়ের রোগ থাকলে এ ক্ষেত্রে অনাগত সন্তানের বিপদ আরও বেড়ে যায়।

http://kolikataherbaldoctor.com/ 

>> যদি মেয়েদের তলপেটের রোগ ব্যাধির (পিআইডি) মতো কোনো সমস্যা থাকে, তাহলে কিন্তু সন্তান পরিকল্পনার সময় তা টের না পাওয়া গেলে পরে মারাত্মক জটিলতা হতে পারে। তাই কোনোরকম ইগো বা ভুল বোঝাবুঝির অবকাশ না রেখে, বিয়ের আগেই করিয়ে নিন প্রয়োজনীয় চেকআপ।
>> ডায়াবেটিস বংশগত কারণে অনেক কম বয়সে দেখা দিতে পারে। ডায়াবেটিস সঠিক সময়ে চিকিৎসা না করালে কম বয়সে যে কেউ হার্ট বা কিডনি রোগে আক্রান্ত হতে পারেন। বিয়ের আগে সামান্য ব্লাড সুগার টেস্টে রোগটি ধরা পড়তে পারে।
ঢাকার ঐতিহ্যবাহী মোহাম্মদপুর কলিকাতা হারবালে আমরা যে সমস্ত রোগের সফলতার সহিত চিকিৎসা দিয়ে আসতেছি এবং প্রমাণিত চিকিৎসা ব্যবস্থা। দীর্ঘদিন যাবৎ থেকে।http://kolikataherbaldoctor.com/
আমাদের সেবা সমূহ :-
---------------------------
গবেষণালব্ধ আধুনিক হারবাল পদ্ধতিতে যে সকল রোগের চিকিৎসা করা হয়।
* হাঁপানী/এজমা/শ্বাসকষ্ট/পুরাতন কাঁশি
* যৌন রোগ/ অক্ষমতা/স্থায়ীত্বহীনতা
* ধাতু দূর্বলতা/ধাতু তরল/অতিরিক্ত স্বপ্নদোষ
* প্রস্রাবের আগে ও পরে ধাতুক্ষয়
* গনোরিয়া/প্রস্রাবের রাস্তায় পুজ পড়া
* সিফিলিস/প্রসাবে জ্বালা যন্ত্রনা
* গ্যাষ্ট্রিক/বুক জ্বলা/কোষ্টকাঠিন্য
* জন্ডিস অরুচি/বদহজম
* ব্রণ/চুলকানী/চর্মরোগ পাইলস্ অর্শ্ব
* নতুন ও পুরাতন আমাশয়
* ডায়াবেটিস/ঘন ঘন প্রস্রাব
* অনিয়মিত মাসিক/সাদাস্রাব (লিকুরিয়া) স্তনের যে কোন সমস্যা
* হেপটাইটিস ভি-ভাইরাস VDRL-Reactive,
* HBS Ag (+ve) ১০০ % গ্যারান্টিসহ সু-চিকিৎসা দেওয়া হয়।
=> শ্বাস-কষ্ট হাঁপানির লক্ষন ও স্থায়ী চিকিৎসা: (১০০% বিফলে ফেরত যোগ্য।)
কলিকাতা হারবাল
হাকিম ডা: মো: মাহাবুবুর রহমান!
(রেজিষ্টার্ড হারবাল স্পেশালিস্ট
যৌন. চর্ম .সাস্থ্যহীনতা.মেদভুড়ি. হাঁপানি,বাত বেথা. হেপাটাইটিস (বি -ভাইরাস). অশ্ব গেজ. ও মহিলা রোগে ( 17 বৎসরের অভিঙ্গতা)
বি:দ্র: আপনার কষ্টার্জিত অর্থ বিনষ্ট। না হওয়ার আগেই সঠিক সিদ্ধান্ত নিবেন। ভালভাবে ডা: চেম্বার, ডা: এর শিক্ষাগত যোগ্যতা যাচাই বাচাই করে চিকিৎসা নিবেন। ফেইসবুকে বা অসত্য প্রচারনা থেকে এড়িয়ে চলুন।
সরাসরি যোগাযোগ-এর ঠিকানা
মোহাম্মদপুর বি.আর.টি.সি বাসস্ট্যান্ড আল্লাহ্ করিম মসজিদ মার্কেট ২য় তলা মোহাম্মদপুর ঢাকা-১২০৭
হট লাইন-01763663333
ডাঃ মোঃ মাহাবুবুর রহমান
ইমু নাম্বার 01971198888 বাংলাদেশের
http://kolikataherbaldoctor.com/

Image may contain: 2 people, text
Image may contain: 1 person, smiling, closeup and text
Image may contain: one or more people and text
Image may contain: 2 people, beard and text